1. mahbub@krishinews24bd.com : krishinews :
শিরোনাম
কানাইঘাটের কৃষিতে আধুনিক ও যুগোপযোগী সংযোজন সমলয় কর্মসূচি পরির্দশনে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সিলেটের  উপ-পরিচালক প্রাণ এগ্রোর বন্ডে বিনিয়োগ নিরাপদ: শিবলী আখের দাম পরিশোধে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ পেলো বিএসএফআইসি ৩০৭ কোটি টাকায় ৬০ হাজার টন টিএসপি ও ইউরিয়া সার কিনবে সরকার রাজবাড়ীতে হালি পেঁয়াজ চাষে ব্যস্ত কৃষকরা কৃষি নিউজ এর পক্ষ থেকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। বেতাগীতে মাঠ ভরা আমনের সবুজ ধানে দোল খাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন শায়েস্তাগঞ্জে ১৩০০ কৃষক পেলেন সরকারি প্রণোদনা ‘কৃষিপণ্য রফতানির ক্ষেত্রে পূর্বশর্ত পূরণে কাজ করছে সরকার’ দেশে দুর্ভিক্ষের আশঙ্কা নেই: খাদ্যমন্ত্রী

এ সময়ের কৃষিঃ(পর্ব-১০)ধানের জমিতে সার প্রয়োগ ও বালাইনাশক নির্দেশিকা

  • আপডেট টাইম : Sunday, August 30, 2020
  • 665 Views
এ সময়ের কৃষিঃ(পর্ব-১০)ধানের জমিতে সার প্রয়োগ ও বালাইনাশক নির্দেশিকা
এ সময়ের কৃষিঃ(পর্ব-১০)ধানের জমিতে সার প্রয়োগ ও বালাইনাশক নির্দেশিকা

কৃষিবিদ কামরুল ইসলাম

প্রশ্ন: ১- ধানের জমিতে কিভাবে সার প্রয়োগ করবো এবং কিছু ধান গাছের পাতা ফুটো করে পোকায় খেয়ে নিচ্ছে কি করবো, রোপণের বয়স ১০ দিনের মত ?

পরামর্শঃ

ধন্যবাদ, আপনাকে। ধানের জমির উর্বরতা, মাটির স্বাস্থ্য ও ধানের জাতের উপর ভিত্তি করে সারের প্রয়োগমাত্রা নির্ধারিত হয়। তবে সাধারণ একটা হার আছে বিঘা প্রতি …..

© ইউরিয়া ২০-৩০ কেজি, টিএসপি ০৮-১০ কেজি, এমওপি ১২-১৫ কেজি, জিপসাম ০৭-০৮ কেজি, জিংক সালফেট ০১-১.৫ কেজি, বোরন ০১-১.৫ কেজি গোবর সার ৮০০-১০০০ কেজি। (মাটির উর্বরতা ও জাত অনুযায়ী সারের পরিমাণের তারতাম্য হয়।)

© ইউরিয়া ছাড়া বাকি সারগুলো এক সাথে মূল জমি প্রস্তুতের সময় দিয়ে দিতে হয়। আর ইউরিয়া ০৩ ভাগে ভাগ করে ১ম কিস্তি চারা রোপণের ০৮-১০, ২য় কিস্তি ২০-২৫ দিন পর এবং ৩য় কিস্তি ৩৫-৪০ দিন পর কাইচথোড় আসার ০৫-০৭ দিন পূর্বে প্রয়োগ করতে হয়।

ধানের পাতা মাছি দমন

আপনি যে ধরনের লক্ষণ বলেছেন তা মনে হচ্ছে পাতা মাছির আক্রমণ। সাধারণত কম বয়সের গাছে পাতা মাছির আক্রমণ দেখা দেয়। লাইন করে টি ফুটো করে এ পোকা পাতা খেয়ে থাকে, আবার পাতার অগ্রভাগেও খেয়ে থাকে।

© স্বচ্ছ দাঁড়ানো পানিতে এ পোকার আক্রমণ দেখা যায়। তাই, পানি ঘোলা করে দিয়েই পাতা মাছি নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এ জন্য কীটনাশক প্রয়োগের প্রয়োজন নাই। আর ২৫% পর্যন্ত পাতার ক্ষতি সহনীয়, এইটা রিকভারি হয়ে যায় এবং ফলনে কোন প্রভাব ফেলেনা।

® এছাড়াও এ সময়ে আরো কিছু কাজ ধানের জমিতে করতে হয়…….

১) বিঘা প্রতি ০৮-১০ টি ডাল পুতে দিন, এতে করে পাখি বসে প্রাকৃতিকভাবে পোকা দমন হবে।

২) সর্বোচ্চ ফলন পেতে প্রথম ৩০-৪০ দিন ধানের জমি আগাছামুক্ত রাখতে হয়, তাই নিড়ানি বা উইডার দিয়ে জমি আগাছা মুক্ত রাখুন।

৩) প্রথম ১০ দিন ৩-৫ সে.মি. এবং ১১ থেকে কাইচ থোড় পর্যন্ত ০২-০৩ সে.মি. পানি রাখতে হয়। বেশি পানি হলে কার্যকরী কুশির সংখ্যা কমে যাবে।

৪) সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম থেকে মাজরা পোকার আক্রমণ শুরু হয়, বিধায় আলোক ফাঁদ,সাদা কাগজ ব্যবহারসহ ০২-০৩ দিন পর জমি নিয়মিত পরিদর্শন করা।

৫) সম্ভব হলে হাত জাল দিয়ে পোকা দমন করা।

৬) ইউরিয়া সার প্রয়োগের পর পর হাত দিয়ে আগলিয়ে দিতে হবে, যাতে করে সার মাটির সাথে মিশে যেতে পারে। না হলে ইউরিয়া সার অপচয় হবে।
৭) সবুজ সার ব্যবহার করলে ২৫% ইউরিয়া সার কম প্রয়োগ করলেই হবে।

© যে কোন কৃষি বিষয়ক জিজ্ঞাসার জন্য কমেন্ট করুন

উত্তর প্রদান করেছেন,
কৃষিবিদ কামরুল ইসলাম
৩৫ তম বিসিএস কৃষি
কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার
পুঠিয়া, রাজশাহী

নিউজ টি শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ করে দিন...

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2020 krishinews24bd

Site Customized By NewsTech.Com