নিউজ ডেস্কঃ

প্রশিক্ষণ মানে একটা হলরুম, সামনে টেবিল, হাতালো চেয়ার, হোয়াইট বোর্ড, প্রজেক্টর, মাল্টিমিডিয়া, ফ্যান চলবে ইত্যাদি থাকবে, এতদিন এটাই জানত রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার কৃষকরা। কিন্তু করোনা মহামারীতে সেই চিত্র পাল্টে দিয়ে প্রশিক্ষণে নতুনত্ব নিয়ে এসেছে উপজেলা কৃষি অফিস। ভবিষ্যত খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কৃষকদের কাছে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি ও কলাকৌশলের ধারণা পৌঁছিয়ে দেওয়ার বিকল্প নাই। অব্যাহত রাখতে হবে, কৃষির ঘূর্ণায়মান চাকার গতি। কৃষকদের উপজেলা অফিসে না নিয়ে এসে প্রশিক্ষকরাই চলে গিয়েছে কৃষকদের বাড়ির আংগিনায় অথবা সুশীতল আম্রকাননের ছায়ায়। সামাজিক দূরত্ব অনুসরণ করে হাতে কলমে দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন প্রযুক্তি সম্পর্কে শিক্ষা। এভাবেই কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, পুঠিয়া কর্তৃক এনএটিপি-২ প্রকল্পের আওতায় গঠিত সিআইজিভুক্ত কৃষাণ- কৃষাণীদের ১৮ ব্যাচ প্রশিক্ষণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *