1. mahbub@krishinews24bd.com : krishinews :
শিরোনাম
যারা কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রীর রাজশাহীর পদ্মায় চামড়া ফেলে দিলেন ব্যবসায়ীরা অনলাইনে পশু বিক্রির রেকর্ড কক্সবাজার সাগর উপকূলে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রূপালী ইলিশ স্বয়ংসম্পূর্ণ বাংলাদেশ, কোরবানিতে দরকার হয়নি গরু আমদানির বছরে একটি নয় দুটি বাছুর দেবে গাভী হবিগঞ্জ,আজমিরিগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসারের অকাল প্রয়াণে ৩৫ তম বিসিএস কৃষি ক্যাডার এসোসিয়েশন এর শোক প্রকাশ না ফেরার দেশে চলে গেলেন আজমিরীগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার বন্যায় খাদ্য উৎপাদন অব্যাহত রাখতে কৃষি মন্ত্রণালয়ের ১২টি তদারকি কমিটি গঠন পার্বত্য অঞ্চলে কৃষিঋণ দিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিশেষ নির্দেশনা

বন্যার কারণে কৃষি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা- কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

  • আপডেট টাইম : Thursday, July 23, 2020
  • 34 বার
বন্যাজনিত কারণে কৃষি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা- কর্মচারীদের সকল ছুটি বাতিল
বন্যাজনিত কারণে কৃষি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা- কর্মচারীদের সকল ছুটি বাতিল

নিউজ ডেস্কঃ

দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যাজনিত কারণে কৃষি মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন সকল/দপ্তর সংস্থার কর্মকর্তা- কর্মচারিদের সকল ধরনের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

বুধবার ২২ জুলাই ২০২০ রাত ৯ টা ৫০ মিনিটে বন্যাজনিত কারণে কৃষি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা- কর্মচারীদের সকল ছুটি বাতিল বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের তথ্য অফিসার মো. কামরুল ইসলাম ভূইয়া ।
বুধবার রাতে কৃষি মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মীনাক্ষী বর্মণ স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ কথা জানানো হয়েছে।
এতে বলা হয়েছে, “দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যাজনিত কারণে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত কৃষি মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন সকল/দপ্তর সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সকল ধরনের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।”
গত সোমবার বন্যার ক্ষয়ক্ষতি ও তা উত্তরণে করণীয় বিষয়ে কৃষি কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছিলেন, বন্যায় প্রাথমিকভাবে প্রায় ৩৪৯ কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে।
বন্যা পরিস্থিতির আর অবনতি না হলে কৃষি মন্ত্রণালয় যেসব কর্মসূচি নিয়েছে তাতে ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছিলেন তিনি।
চলমান বন্যার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত আমনের বীজতলার জন্য দ্রুত বিকল্প বীজতলা তৈরির জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন কৃষিমন্ত্রী। বন্যা এই পর্যন্ত ভাসিয়েছে ৩৪৯ কোটি টাকার ফসল
সেদিনের সভায় জানানো হয়েছিল, প্রথম পর্যায়ে ২৫ জুন হতে ৯ জুলাই পর্যন্ত অতিবৃষ্টি, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও নদ-নদীর পানি বৃদ্ধির কারণে বন্যায় রংপুর,গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, সিলেট, সুনামগঞ্জ, জামালপুর, নেত্রকোণা, রাজশাহী, মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, টাঙ্গাইলসহ ১৪টি জেলায় ১১টি ফসলের প্রায় ৭৬ হাজার ২১০ হেক্টর জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মোট ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের সংখ্যা ৩ লাখ ৪৪ হাজার জন।

দ্বিতীয় পর্যায়ে ১১ জুলাই হতে ১৯ জুলাই পর্যন্ত মানিকগঞ্জ, বগুড়া, টাংগাইল, নাটোর, নওগাঁ, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, জামালপুর, রাজশাহী, দিনাজপুর, ফরিদপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী, শরীয়তপুর, ময়মনসিংহ, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, শেরপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ ২৬টি (আগের ১৪টিসহ) জেলায় ১৩টি ফসলের প্রায় ৮৩ হাজার হেক্টর জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত ফসলের পরিমাণ এখনও নিরূপণ হয়নি।

সরকারি হিসাবে এরই মধ্যে ১৭টি জেলা বন্যায় প্লাবিত এবং ১৪ লাখ ৫৭ হাজার ৮২৭ জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র বলছে, নতুন করে ২৩ জেলায় বন্যা বিস্তৃতি লাভ করবে এবং তা অগাস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত স্থায়ী হবে।
সুত্রঃএগ্রিকেয়ার

নিউজ টি শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ করে দিন...

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2020 krishinews24bd

Site Customized By NewsTech.Com