1. mahbub@krishinews24bd.com : krishinews :
শিরোনাম
কানাইঘাটের কৃষিতে আধুনিক ও যুগোপযোগী সংযোজন সমলয় কর্মসূচি পরির্দশনে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সিলেটের  উপ-পরিচালক প্রাণ এগ্রোর বন্ডে বিনিয়োগ নিরাপদ: শিবলী আখের দাম পরিশোধে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ পেলো বিএসএফআইসি ৩০৭ কোটি টাকায় ৬০ হাজার টন টিএসপি ও ইউরিয়া সার কিনবে সরকার রাজবাড়ীতে হালি পেঁয়াজ চাষে ব্যস্ত কৃষকরা কৃষি নিউজ এর পক্ষ থেকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। বেতাগীতে মাঠ ভরা আমনের সবুজ ধানে দোল খাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন শায়েস্তাগঞ্জে ১৩০০ কৃষক পেলেন সরকারি প্রণোদনা ‘কৃষিপণ্য রফতানির ক্ষেত্রে পূর্বশর্ত পূরণে কাজ করছে সরকার’ দেশে দুর্ভিক্ষের আশঙ্কা নেই: খাদ্যমন্ত্রী

বাসার ছাদে টবে চাষ করুন শসা,জেনে নিন খুঁটিনাটি।

  • আপডেট টাইম : Tuesday, May 26, 2020
  • 739 Views

শসা, সারা বছরই পাওয়া যায় এবং এই শসা আমাদের শরীরের জন্যও খুবই উপকারী৷ শসার চাষ বাড়ির ছাদেই সম্ভব৷ খুব বেশি পরিশ্রমও করতে হয় না৷ কীভাবে সহজে শসা চাষ করা যায় তা জানবো, তবে তার আগে চোখ রাখা যাক শসার উপকারিতা ।

শসার বিজ্ঞানসম্মত নাম- Cucumis sativus. এটি দৈর্ঘ্যে প্রায় ১০-১২ ইঞ্চি লম্বা হয়ে থাকে। বাইরে সবুজ এবং ভিতরে হালকা সবুজ রঙের হয়৷ এর ভিতরে প্রচুর বীজ থাকে৷ স্যালাডে এটি খুবই ব্যবহৃত হয়। সবজি হিসেবে অনেকে রান্নাও করেন৷ এছাড়া ত্বকের পরিচর্যায় এর রস ব্যবহার করা হয়৷ এটি গরম কালে বেশি পাওয়া গেলেও, বছরের অন্যান্য সময়েও এটি পাওয়া যায়৷
শসায় রয়েছে ভিটামিন বি, ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, সোডিয়াম, জিঙ্ক, পটাশিয়াম, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, লোহা, আঁশ, ফাইবার, প্রোটিন, শর্করা, চিনি, জল, স্নেহ পদার্থ প্রভৃতি৷ আর এইসব উপাদান শসাতে বিদ্যমান থাকায় শরীরকে বহু সমস্যার হাত থেকে এটি রক্ষা করে৷ উচ্চ রক্তচাপ কমাতে, হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে, হাড় মজবুত করতে, হজমশক্তি বাড়াতে, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে, কোলেস্টেরল এবং শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে৷

প্রধানত ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ মাসে শসা চাষের সময় হলেও, তবে সারা বছরই এর উৎপাদন সম্ভব৷ মূলত দোআঁশ মাটি শসা চাষের জন্য খুবই উপযোগী৷ নার্সারি থেকে উন্নত মানের বীজ সংগ্রহ করে তা একদিন জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে৷ তারপর তা টবের মাটিতে রোপনের উপযুক্ত হবে৷ মাঝারি সাইজের একটি টবে বীজ বপন করলে তার সংখ্যা ৫-৬টি এবং চারা হলে ২-৩টি রোপন করা যেতে পারে৷

দোআঁশ মাটির সঙ্গে ইউরিয়া, কম্পোস্ট, জৈব সার মিশিয়ে নিতে হবে৷ মাটি ঝুরঝুরে হলে এতে চারা রোপন করতে হবে৷ এরপর প্রতিদিন পরিমিত জল দিতে থাকতে হবে৷ কারণ শসা গাছের জন্য জল, আলো-বাতাসের ভালো প্রয়োজন রয়েছে৷ টবের মাটি যেন চেপে না যায় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে, মাঝে মাঝে মাটি খুঁচিয়ে দিতে হবে৷ সেই সঙ্গে শসা গাছ যাতে ঠিকভাবে বেড়ে উঠতে পারে তাই কিছুদিন পর মাচা তৈরি করে দিলে ভালো ৷ আগাছা হতে দেওয়া যাবে না৷

শসা গাছে জাব পোকা আক্রমণ করতে পারে৷ নিম বীজের দ্রবণ বা সাবানগোলা জল স্প্রে করা যেতে পারে৷ তিন থেকে চার মাস পরে শসা সংগ্রহের জন্য উপযুক্ত হয়ে ওঠে৷

বর্ষা চ্যাটার্জি

নিউজ টি শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ করে দিন...

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2020 krishinews24bd

Site Customized By NewsTech.Com